সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন

মেলবোর্নে হুইলি বিনে এক নারীর মরদেহ উদ্ধার

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১০ মার্চ, ২০২৪
  • ৮০৪ Time View

অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের প্রায় ৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে উইনচেলসির কাছে একটি হুইল বিনের মধ্যে এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বিনটিকে মাউন্ট পোলক রোডের সারি সারি গাছের ভেতর সাদা কাপড় দিয়ে মুড়িয়ে ভাঁজ করা বান্ডিলের মত করে রাখা হয়েছিল।বিনটি তালা বদ্ধ অবস্থায় ছিল।
ভিক্টোরিয়া পুলিশ জানান, অফিসাররা শনিবার দিকে বাকলির মাউন্ট পোলক রোডের কাছে মহিলার মৃতদেহ খুঁজে পেয়েছে। এখনো এই অপরাধের সাথে জড়িত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। ধারনা করা হচ্ছে, হত্যার পর অপরাধী দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

পুলিশের একজন মুখপাত্র বলেছেন, তদন্ত চলমান রয়েছে। এই মৃত্যুটি সন্দেহজনক এবং অপরাধী ইতিমধ্যে অস্ট্রেলিয়া ছেড়ে চলে গেছে।
নিহত ভারতীয় বংশোদ্ভূত চৈতন্য স্বেতা মাধগানি এবং তার স্বামী অশোক রাজ ভারিকুপ্পালা, দুজনেই অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক এবং তাদের ছোট একটি ছেলে সহ পয়েন্ট কুকের বাড়িতে থাকতেন।
জানা যায়, যেখানে মাধগনি যে বাড়িটিতে থাকতেন তা বাকলি ফার্ম থেকে প্রায় ৮৫ কিলোমিটার দূরে যেখানে তার মৃতদেহ পাওয়া যায়। ফরেনসিক দলগুলি রবিবার সকালে পয়েন্ট কুকের এলাকাটি পরীক্ষা করে এবং পুরো এলাকা বন্ধ করে দেয়।

ধারনা করা হচ্ছে যে স্বেতার স্বামী অশোক রাজ ভারিকুপ্পালা তাকে হত্যা করেছে এবং তাদের একমাত্র ছেলেকে নিয়ে ভারতে পালিয়ে গেছে। তিনি স্বেতার বাবা-মায়ের কাছে অপরাধ স্বীকার করেছে বলেও সর্বশেষ খবরে জানা গেছে ।কিন্তু স্বেতার বাবা-মা, মেয়ের এই মর্মান্তিক মৃত্যু সংবাদে বিধ্বস্ত অবস্থায় থাকায় এবং তাদের নাতির কারণে অশোকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে দ্বিধাগ্রস্ত।
পুলিশ লাশ সনাক্তের স্থান এবং পয়েন্ট কুকে দম্পতির বাসভবন উভয়ই স্থানেই তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রতিবেশীরা জানায়, মাধগনি একজন প্রাণোচ্ছল এবং সুন্দর ব্যক্তিত্বের মানুষ ছিলেন।
তিনি অত্যন্ত বুদ্ধিমান ও সৃজনশীল ছিলেন।তিনি তার জীবনকে ভালোবাসতেন।আশে পাশের সকল প্রতিবেশীদের সাথে তার সুসম্পর্ক ছিল।
ভারতীয় সম্প্রদায়ের নেতা এবং অস্ট্রেলিয়ার তেলেগু অ্যাসোসিয়েশনের প্রাক্তন সভাপতি রাজা রমেশ রেড্ডি একটি ফেসবুক পোস্টে জানান, মাধগনির মৃত্যুর খবরটি অবিশ্বাস্য।তিনি গত সপ্তাহেই পয়েন্ট কুকে বসবাসরত সকল নারীসহ নিহত স্বেতার সাথে কথা বলেছেন এবং তাদের বাচ্চাদের কাজ নিয়ে আলোচনা করেছেন। তিনি বলেন সে আর নেই,
তাকে ভয়ঙ্করভাবে হত্যা করা হয়েছে এই খবর সবার জন্যই মর্মান্তিক এবং এই ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের দ্রুত বিচারের আওতায় আনা হোক।
মিসেস মাধগনি এবং তার পরিবার অন্তত তিন বছর ধরে পয়েন্ট কুকে বসবাস করছিলেন বলে প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category