রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১২:৩০ পূর্বাহ্ন

উৎসাহ ও উদ্দীপনার সাথে সিডনি কনস্যুলেট মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ১১১ Time View

বিনম্র শ্রদ্ধা এবং ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ কনস্যূলেট জেনারেল সিডনিতে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়।দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে সিডনি মিশন বিস্তারিত কর্মসূচী গ্রহন করে।দিবসের শুরুতে কনসাল জেনারেল পতাকা অর্ধনমিত করনের মাধ্যমে দিনের কার্যক্রমের সূচনা করেন।এর পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ, মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বাণী পাঠ ও মহান ভাষা আন্দোলনে শহীদগনের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত এবং বাংলাদেশের অব্যাহত শান্তি ও উত্তোরত্তর সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

অপরাহ্নে বাংলাদেশ কনস্যূলেট জেনারেল, সিডনিতে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে নিউ সাউথ ওয়েলসে বসবাসরত প্রবাসীগনের উপস্থিতিতে দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়।জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শুরু করার পর পবিত্র কোরান থেকে তেলাওয়াত, গীতা ও বাইবেল পাঠ করা হয়।ভাষা শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে মাহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বাণী উপস্থিত দর্শকদের পড়ে শুনানো হয়।

কনসাল জেনারেল তার বক্ত্যবের শুরুতে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের তাৎপর্য তুলে ধরেন এবং ভাষা আন্দোলনে শহীদের ও ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন করে যে সকল বীর সন্তান তাদের জীবন উৎসর্গ করেছেন তাদের গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।দিনটির গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার বীজ বপন হয়েছিল তা মূলত ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে।তারই ধারাবাহিকতায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছে।তিনি আরো বলেন ভাষা শহীদ এবং মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহনকারীদের সর্বোচ্চ আত্মত্যাগ আমাদের ভুলে গেলে চলবে না।বরং তাদের আত্মত্যাগকে ধারন করে আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে।এছাড়া সিডনিতে বসবাসরত বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত প্রবাসী বাংলাদেশীদেরকে তাদের দেশপ্রেমের মাধ্যমে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার বিষয়েও গুরোত্বারোপ করেন।

সিডনিতে অবস্থিত ‘একুশে একাডেমী অস্ট্রেলিয়ার’ একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশনার মাধ্যমে দিনটি উদযাপন করা হয়।পরিশেষে কনসাল জেনারেল মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আগত অতিথিবৃন্দকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন এবং কনস্যূলেট কতৃক আয়োজনে আপ্যায়নে অংশগ্রহনের আহবান জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category