রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন

সদরঘাটে ঘরমুখো মানুষের ঢল, বৃষ্টিতে ভোগান্তি

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪
  • ২৮ Time View

বছর ঘুরে আবার দরজায় কড়া নাড়ছে মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা। আগামী ১৭ জুন (সোমবার) উদ্‌যাপিত হবে ঈদুল আজহা। আগামী সপ্তাহের রবি, সোম ও মঙ্গলবার ঈদ উপলক্ষে সরকারি ছুটি। তার আগে এই সপ্তাহের বৃহস্পতিবার শেষ কর্মদিবস। শেষদিন অফিস শেষে প্রিয়জনদের সঙ্গে কোরবানির ঈদ উদ্‌যাপনে রাজধানী ছাড়তে শুরু করেছেন নগরবাসী। ঈদের আগমুহূর্তের ভিড় আর দুর্ভোগ এড়াতে আজ ঢাকা ছাড়ছেন অসংখ্য মানুষ। তবে শেষ বিকেলের বৃষ্টি কিছুটা ভাটা পড়েছে ঈদযাত্রায়।

ঈদ সামনে রেখে রাজধানীর সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে ঘরমুখো মানুষের ভিড় দেখা গেছে। পরিবারের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে নদীপথে ঢাকা ছাড়ছেন মানুষ। আর চাঁদপুর, বরিশাল ও ভোলা যাওয়া জন্য ঘাটে দাঁড়িয়ে আছে সারি সারি বিলাসবহুল লঞ্চ। লঞ্চগুলোর কেবিন খালি নেই, ডেকেও দেখা গেছে যাত্রীদের ভিড়।

এবারের ঈদযাত্রা সম্পর্কে শিপিং অ্যান্ড কমিউনিকেশন রিপোর্টার্স ফোরাম (এসসিআরএফ) জানিয়েছে, ঈদুল আজহা উপলক্ষে ঢাকা অঞ্চলের সোয়া দুই লাখ মানুষ বৃহত্তর বরিশালসহ বিভিন্ন উপকূলীয় জেলায় যাবেন। কিন্তু এবার ঈদযাত্রার সময় মাত্র চারদিন হওয়ায় নৌযান চলাচলে চাপ বেশি পড়বে।

নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির তথ্য অনুযায়ী, ঢাকার ৯৫ শতাংশ নৌ-যাত্রী ঢাকা নদীবন্দর (সদরঘাট নদীবন্দর) ব্যবহার করবে। ঈদ স্পেশাল সার্ভিসের আওতায় সদরঘাট টার্মিনাল থেকে মোট ১৮০টি লঞ্চ চলাচল করবে। এসব নৌপরিবহনের মধ্যে ঢাকা ছাড়বে ৯০টি, বিভিন্ন স্থান থেকে ৯০টি ঢাকায় আসবে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল এলাকা ঘুরে দেখা যায়, প্রায় প্রতিটি লঞ্চই যাত্রী বোঝাই। ডেকে জায়গা পেতে দুপুর থেকেই ভিড় করছেন যাত্রীরা। তবুও যাত্রী ওঠানোর হাঁকডাক দিচ্ছেন লঞ্চ শ্রমিকরা।

তারা জানান, পদ্মা সেতুর কারণে নৌ পথে যাত্রীর চাপ আগের থেকে অনেক কমেছে। তবে এরপরও অনেক যাত্রী দুপুর থেকে ভিড় করছেন। ইতোমধ্যে বিভিন্ন রুটে বেশ কয়েকটি লঞ্চ ছেড়ে গেছে। রাত ৯টা পর্যন্ত বাকি লঞ্চগুলো ছেড়ে যাবে।

আজকের পর থেকে অফিস-আদালত ছুটি হয়ে যাওয়ায় ভিড় বাড়তে শুরু করেছে জানিয়ে লঞ্চ সংশ্লিষ্টরা বলেন, ঈদের আগে শেষ কর্মদিবস আজ। তাই ভিড় বেড়েছে। আগামীকাল সকাল থেকেও অনেক লঞ্চ গন্তব্যের উদ্দেশে ছুটে যাবে। এতে রোববার শেষ দিনে চাপ কিছুটা কমতে পারে।বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পরিচালক মো. সলেমান জানান, বৃষ্টিতে যাত্রী চাপ কিছুটা কমেছে। তবে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় কিছুটা বেশি রয়েছে। বিআইডব্লিউটিএর পক্ষ থেকে যাত্রী ও চালকদের দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া বিবেচনা করে চলাচলের জন্য সতর্ক করা হচ্ছে। বৃষ্টির পরিমাণ কমলে লঞ্চ ছাড়ার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category