রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০১:৫১ পূর্বাহ্ন

৭ই মার্চের ভাষণ শুধু যুদ্ধের প্রস্তুতি নয়, বিজয়ও এনে দিয়েছে

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ, ২০২৪
  • ৮৬ Time View

বাংলাদেশের স্বাধীনতা বঙ্গবন্ধুর দীর্ঘদিনের সংগ্রামের ফসল। বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ স্বাধীনতার জন্য জাতিকে শুধু প্রস্তুতই করেনি, বিজয়ও এনে দিয়েছে।’

বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) সকাল ১১টা ৩০ মিনিটের দিকে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সব কথা বলেন।

ইতিহাস কখনো মুছে ফেলা যায় না উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে একটি গোষ্ঠী চেয়েছিল এদেশ থেকে ‘বঙ্গবন্ধু’র নাম মুছে ফেলতে। তারা ৭ই মার্চের ভাষণ এবং ‘জয় বাংলা’ স্লোগানও নিষিদ্ধ করে। ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের নাম মুছে দিতে উদ্যত হয়। কিন্তু ইতিহাস কখনো মুছে ফেলা যায় না। তারই প্রমাণ জাতিসংঘের ইউনেস্কো কর্তৃক ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর ৭ই মার্চের ভাষণকে ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে স্বীকৃতি। শুধু তাই নয়, ইউনেস্কো মনে করে এ ভাষণটির মাধ্যমে জাতির পিতাই প্রকারান্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের হাইকোর্টের রায়ের ওপর ভিত্তি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ‘জয় বাংলা’-কে জাতীয় স্লোগান ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

এ ভাষণ বাঙালিকে শুধু উদ্বুদ্ধই করেনি, বিজয়ও এনে দিয়েছে বলেও জানান সরকার প্রধান। তিনি বলেন, ৭ই মার্চের ভাষণে বঙ্গবন্ধু আমাদের ‘স্বাধীনতা’ নামের এক অমরবাণী শুনিয়েছিলেন এবং সংগ্রামের মাধ্যমে শৃঙ্খলমুক্তির পথ দেখান। তিনি বীর বাঙালির অবশ্যম্ভাবী বিজয়কে উৎকীর্ণ করেন তাঁর ভাষণের শেষ দুটি শব্দে- ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category